ব্রেকিং:
মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা ফেনীতে করোনার নমুনা সংগ্রহ করবে স্বাস্থ্যকর্মীরা ফেনীর বিভিন্নস্থানে মোবাইল কোটের অভিযান : ১৪ জনের দন্ড ফেনীতে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিয়েছে ছাত্রলীগ করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের ফেনীর ৭ সরকারি কলেজের একদিনের বেতন ত্রাণ তহবিলে ফেনী ধলিয়ায় গ্রাম পুলিশের বাড়িতে হামলা, আহত ২ মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? ফেনীতে বাড়তি দামে পণ্য বেচায় ৭ দোকানের জরিমানা দেশে করোনায় আক্রান্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার, একদিনে মৃত্যু ৫ যুক্তরাষ্ট্রে করোনা জয় করলেন ১ লাখেরও বেশি মানুষ ফেনীতে গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ফেনী শহরে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান ফেনীতে ডাক্তারদের সুরক্ষা ও রোগীদের চিকিৎসা সামগ্রী দিয়েছে বিএমএ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো
  • মঙ্গলবার   ২৯ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯

  • || ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

লাঠিতে ঝুড়ি বেঁধে চলছে বেচা-কেনা

ফেনীর হালচাল

প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০২০  

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় পরিবর্তন হয়েছে মানুষের চিন্তাধারা, সচেতন হচ্ছেন সবাই। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আর সামাজিক ব্যক্তিদের ব্যাপক সচেতনতামূলক প্রচারণায় এরইমধ্যেই ফলপ্রসূ হতে শুরু করেছে।

গত বুধবার থেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী, অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ নির্দেশনার প্রথমদিন ঢিলেঢালা চললেও দ্বিতীয় দিনে সচেতনতার পরিচয় দিয়েছে সাতক্ষীরার সাধারণ মানুষ। এদিন খুব কম মানুষকে বাইরে বের হতে দেখা গেছে। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে জেলার কিছু কিছু অঞ্চলে মুদি দোকানগুলোতে দেখা গেছে ব্যতিক্রম সচেতনতা।

দোকানের সামনে লাল ফিতার ব্যারিকেড দিয়ে কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব বজায় রেখে ক্রেতাদের পণ্য সরবরাহের চিত্র চোখে পড়েছে। আবার কিছু কিছু দোকানে ক্রেতাদের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। ক্রেতারা দোকানের সামনে গিয়ে হাত ধুয়ে হাতে অ্যান্টিসেপ্টিক লাগিয়ে তারপর লেনদেন করছেন দোকানির সঙ্গে। 

স্থানীয় দোকানিরা বলছেন, ব্যাপক প্রচারণার ফলে আমরা এসব পদ্ধতি চালু করতে উৎসাহিত হয়েছি। আমরা সবাই সতর্ক হলে করোনাভাইরাস ছড়াতে পারবে না।

ক্রেতারা বলছেন, দোকানদারদের এ ব্যতিক্রম সচেতনতা দেখে আমরাও নিজেদের নিরাপদ মনে করছি। তবে আরো সতর্ক হতে হবে আমাদের সবাইকে। আমরা দোকানে এসে  দূর থেকে লেনদেন করছি, নির্দিষ্ট বৃত্তের মধ্যে দাঁড়িয়ে কেনাকাটা করছি। শুধু সাতক্ষীরা নয় সারাদেশেই এভাবে সচেতনতা অবলম্বন করে ও হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে পারলেই আমরা করোনাভাইরাসকে প্রতিহত করতে পারব।

সাতক্ষীরা শহরের শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কের দক্ষিণ পাশে রানা-রনি স্টোরে দেখা গেল ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ দোকানি নিরাপদ দুরত্বে থেকে বাঁশের লাঠিতে ঝুড়ি বেঁধে তাতে করেই মালামাল দিচ্ছেন ক্রেতাদের। কয়েকজন ব্যবসায়ীকে দেখা গেছে ক্রেতাদের হাতে জীবাণুনাশক স্প্রে করে তারপর পণ্য তুলে দিচ্ছেন।

শহরের থানা মোড়, পাকাপোলের মোড়, এলাকার কয়েকটি ফল ও ওষুধের দোকানে নিরাপদ দুরত্ব চিহ্নিত করে বৃত্ত একে দেয়া হয়েছে।

জেলা শহরের বাইরে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় তালা ও শ্যামনগর উপজেলার কয়েকটি বাজারে বিভিন্ন দোকানে সামনে নিরাপদ দূরত্ব চিহ্নিত করে বৃত্ত একে দিয়েছে স্থানীয় কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

সাতক্ষীরার ডিসি ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এস এম মোস্তফা কামাল বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপদ দূরত্বে থেকে বেচা-কেনা করার জন্য ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অনেকে নিজ উদ্যোগে দোকানের সামনে নিরাপত্তা চিহ্ন একে দিয়েছেন। এছাড়া জন সচেতনতার লক্ষে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালানো হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা সব সময় মাঠে আছে। সেনা সদস্যরাও এসেছেন জনসচেতনতা লক্ষে তারাও নানা প্রস্তুতি নিচ্ছে। গ্রাম পর্যায়ে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও এলাকার জনপ্রতিনিধিরা সবাই একসঙ্গে কাজ করছেন।

ফেনীর হালচাল
ফেনীর হালচাল