ব্রেকিং:
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা ফেনীতে করোনার নমুনা সংগ্রহ করবে স্বাস্থ্যকর্মীরা ফেনীর বিভিন্নস্থানে মোবাইল কোটের অভিযান : ১৪ জনের দন্ড ফেনীতে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিয়েছে ছাত্রলীগ করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের ফেনীর ৭ সরকারি কলেজের একদিনের বেতন ত্রাণ তহবিলে ফেনী ধলিয়ায় গ্রাম পুলিশের বাড়িতে হামলা, আহত ২ মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? ফেনীতে বাড়তি দামে পণ্য বেচায় ৭ দোকানের জরিমানা দেশে করোনায় আক্রান্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার, একদিনে মৃত্যু ৫ যুক্তরাষ্ট্রে করোনা জয় করলেন ১ লাখেরও বেশি মানুষ ফেনীতে গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ফেনী শহরে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান ফেনীতে ডাক্তারদের সুরক্ষা ও রোগীদের চিকিৎসা সামগ্রী দিয়েছে বিএমএ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো ফেনীতে ৩ হাজার ঈমাম-মুয়াজ্জিনকে ইফতার সামগ্রী দিলেন নিজাম হাজারী রাতে ধান কাটতে হাওরে ডিসি-ইউএনও রমজানের শুভেচ্ছা জানালেন ট্রাম্প
  • বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৭

  • || ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

স্বল্পতম সময়ের মধ্যে দেশে ভেন্টিলেটর উৎপাদন হবে

ফেনীর হালচাল

প্রকাশিত: ১ এপ্রিল ২০২০  

প্রকৌশলী ওমর ইশরাক এক টুইটে ভেন্টিলেটর তৈরির ডিজাইন উন্মুক্ত করার কথা জানিয়েছেন। টুইটে তিনি জানান, বৈশ্বিক মহামারীর এ সময়ে মেডট্রনিক ভেন্টিলেটর তৈরির কলা–কৌশল উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। প্রযুক্তিগত সোর্স কোডও উন্মুক্ত করা হয়েছে যেন এ দুর্যোগের সময় সক্ষম যে কোন প্রতিষ্ঠান ভেন্টিলেটর উৎপাদন করতে পারে।

ওমর ইশরাক এ বিষয় নিয়ে একটি ফাইল শেয়ার করেছেন। এতে লেখা আছে, ভেন্টিলটরের প্রযুক্তিগত নকশা এমনভাবে উন্মুক্ত করা হয়েছে যেন উৎপাদক প্রতিষ্ঠান, স্টার্ট আপ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহজেই যন্ত্রটি উৎপাদন করতে পারে। পিবি ৫৬০ নামের ওই ভেন্টিলেটরের পেটেন্ট উন্মুক্ত করা হয়েছে। ভেন্টিলেটরটির সেবার নির্দেশিকা (ম্যানুয়াল), নকশা বিষয়ে প্রয়োজনীয় নথি, উৎপাদন প্রক্রিয়ার তথ্য, রূপরেখা ও স্পেসিফিকেশন Medtronic.com/openventilator ওয়েবসাইট থেকে যে কেউ নিতে পারবেন। এ প্রযুক্তিতে তৈরি ভেন্টিলেটর দিয়ে সহজেই বয়ষ্ক ও শিশুদের সহজেই অক্সিজেন দেওয়া যাবে। এটি সহজেই যেকোন পরিচর্যা কেন্দ্র বা বাসায় ব্যবহারের উপযোগী।

মেডট্রনিক আশা করছে, ভেন্টিলেটরটির পেটেন্ট উন্মুক্ত করায় করোনাভাইরাসের মহামারির এ সঙ্কটে ভেন্টিলেটর উৎপাদন বাড়বে। পেটেন্ট উন্মুক্ত করায় বাংলাদেশ সরকারও স্থানীয় প্রকৌশলীদের সহায়তায় উৎপাদন করতে পারবেন। মেডট্রনিকের গবেষণা ও উন্নয়ন শাখার কর্মকর্তারা যেকোন কারিগরি সহায়তা দিতে প্রস্তুত আছেন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, স্বল্পতম সময়ের মধ্যে দেশে ভেন্টিলেটর উৎপাদন হবে। এ ব্যাপারে আমরা ভীষণভাবে আশাবাদী। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে নাগরিকদের তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে করোনাভাইরাস ঝুঁকি নির্ণয় ও সেবা দিতে বেশ কয়েকটি প্ল্যাটফর্ম চালু করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

সোমবার (৩০ মার্চ) প্রতিমন্ত্রী তার বাসভবন থেকে জুম পদ্ধতির অবলম্বনে সরাসরি এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এসব প্ল্যাটফর্ম সম্পর্কে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন। এসময় তিনি জানান, বিশ্বখ্যাত মেডিকেল যন্ত্র প্রস্তুতকারী কোম্পানি মেডট্রনিকের সহায়তায় দেশের প্রযুক্তি পণ্য প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন ভেন্টিলেটর তৈরিতে এগিয়ে এসেছে। সংবাদ সম্মেলনে তথ্যপ্রযুক্তি সচিব এন এম জিয়াউল আলমসহ বিভাগ এবং এর আওতাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় স্টার্টআপ বাংলাদেশ (Startupbangladesh.gov.bd) প্ল্যাটফর্মেও ১৭ ধরনের ইনোভেটিভ ইনিশিয়েটিভ রাখা হয়েছে। ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ভিত্তিক এই প্ল্যাটফর্মগুলো হলো, লাইভ করোনা টেস্ট ডট কম, করোনা অ্যাকশন বট (ক্যাব), কল ফর ন্যাশন ডট কম, প্রবাসী হেলপ লাইন ডট কম, এমনমি আইসিটি ডিভিশন বিডি এবং স্টার্টাপ ডট গভ ডট বিডি। এর মাঝে স্টার্টাপ বাংলাদেশ ডট গভ ডট বিডি প্ল্যাটফর্মে ১৭টি ভিন্ন আলাদা প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। স্টার্টাপ বাংলাদেশের তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন প্রযুক্তি কর্মজীবী, প্রযুক্তি প্রকৌশলী এবং উদ্যোক্তাগণ এসব প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেন।

জুনাইদ আহমেদ বলেন, ঘরে বসেই করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি পরীক্ষা করুন। রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) প্রতিদিন লাখ লাখ কল আসছে। অনেকে খুব সাধারণ বিষয়েও প্রশ্ন করছেন। এতে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে নানান সংকট তৈরি হচ্ছে। একসঙ্গে লাখ লাখ মানুষকে সেবা দিতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্সের (এআই) ব্যবহার করা হয়েছে। https://livecoronatest. com নামে এই সাইটে গিয়ে কিছু প্রশ্নের জবাব দিলে বোঝা যাবে তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার মতো ঝুঁকিতে আছেন কি না। এছাড়া বিভাগের ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ এম.মি স্লাশ আইসিটিডিভিশনবিডি ( m.me/ictdivisionbd ) -এ মিলবে তথ্যসেবা।

তিনি আরো বলেন, ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে কিছু প্রশ্নের জবাব দিয়ে জানতে পারবেন আপনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার মতো ঝুঁকিতে আছেন কি না। যদি ঝুঁকিতে থাকেন তাহলে কী কী করতে হবে, তার পরামর্শও পাওয়া যাবে। যদি ঝুঁকিতে থাকেন তাহলে নিজের নাম, মুঠোফোন নম্বর ও যেখানে অবস্থান করছেন তা পূরণ করে দিলে তথ্যগুলো সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে চলে যাবে। পরে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যোগাযোগও করবে।

পলক জানান, শ্বাসজনিত সমস্যায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় ভেন্টিলেটরের সাহাজ্যের প্রয়োজন পড়ে। কোভিড-১৯ আক্রান্তদের জন্যও ভেন্টিলেটরের প্রয়োজন পড়ায় বিশ্বজুড়ে এর চাহিদা ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে। বাংলাদেশও জরুরিভিত্তিতে ভেন্টিলেটর আমদানির চেষ্টা চালাচ্ছে।

ফেনীর হালচাল
ফেনীর হালচাল