ব্রেকিং:
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা ফেনীতে করোনার নমুনা সংগ্রহ করবে স্বাস্থ্যকর্মীরা ফেনীর বিভিন্নস্থানে মোবাইল কোটের অভিযান : ১৪ জনের দন্ড ফেনীতে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌছে দিয়েছে ছাত্রলীগ করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের ফেনীর ৭ সরকারি কলেজের একদিনের বেতন ত্রাণ তহবিলে ফেনী ধলিয়ায় গ্রাম পুলিশের বাড়িতে হামলা, আহত ২ মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? ফেনীতে বাড়তি দামে পণ্য বেচায় ৭ দোকানের জরিমানা দেশে করোনায় আক্রান্ত প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার, একদিনে মৃত্যু ৫ যুক্তরাষ্ট্রে করোনা জয় করলেন ১ লাখেরও বেশি মানুষ ফেনীতে গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ফেনী শহরে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান ফেনীতে ডাক্তারদের সুরক্ষা ও রোগীদের চিকিৎসা সামগ্রী দিয়েছে বিএমএ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো ফেনীতে ৩ হাজার ঈমাম-মুয়াজ্জিনকে ইফতার সামগ্রী দিলেন নিজাম হাজারী রাতে ধান কাটতে হাওরে ডিসি-ইউএনও রমজানের শুভেচ্ছা জানালেন ট্রাম্প
  • বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৭

  • || ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

লকডাউন উপেক্ষা করে আনসারীর জানাজায় লাখো মানুষ

ফেনীর হালচাল

প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২০  

দেশে উদ্ভূত করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে লকডাউন উপেক্ষা করে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির, বেড়তলা মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ও ইসলামী আলোচক আল্লামা মাওলানা যুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় লাখো মানুষ অংশ নিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, এই বিপুল জনসমাগমের ফলে করোনাভাইরাস সর্বত্র ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারণ জানাজায় অংশ নিতে আসা মানুষের মধ্যে কেউ আক্রান্ত নন, এমন তথ্য নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

তাই সচেতনতার অভাবে এখন একজন থেকে সহজেই ভাইরাস সংক্রমিত হতে পারে অন্যজনের দেহে। গাণিতিক হিসেবে তা ১ জনের দেহ থেকে হতে পারে লাখো জনের। এভাবে পুরো বাংলাদেশ ক্রমেই পরিণত হতে পারে করোনার হটস্পটে। স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে থানার ওসি প্রথমে আন্তরিকভাবে এই জনঢল থামানোর চেষ্টা করলেও পরে বানের জলের মতো লোকসমাগম হওয়ায় তা আর নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়নি। বিশিষ্টজনরা বলছেন, কাণ্ডজ্ঞানহীন কিছু মানুষের অসতর্কতায় গোটা দেশের মানুষ এখন মৃত্যু ঝুঁকিতে পড়তে যাচ্ছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছে, শনিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জামিয়া রহমানিয়া বেড়তলা মাদরাসা প্রাঙ্গণে মাওলানা যুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চলমান লকডাউন উপেক্ষা করে লাখো মানুষের সমাগম হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায়ের কথাটি মুখে মুখে বলা হলেও আদতে তা এই বিশাল জনসমুদ্রে রক্ষা করা হয়নি। গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে উপস্থিতরা জানাজায় অংশ নেন।

এ সময় স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের এভাবে একত্রিত না হতে অনুরোধ জানালেও কোনও ফল মেলেনি। তারা পুলিশের কথায় কর্ণপাত না করে উপরন্তু সারি বেঁধে জানাজায় অংশ নেন। এ সময় পুলিশ ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে শত চেষ্টা করেও তাদের বিচ্ছিন্ন করতে পারেনি।

অসতর্ক এসব মানুষের কারণে সরকারের এতোদিনের করোনা প্রতিরোধের কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হবে উল্লেখ করে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার বলেন, এটা থেকে বোঝা যায় যে, আমাদের মাঝে সচেতনতার অভাব রয়েছে। তা না হলে কেন করোনার এই সময়ে তারা এমন ঘটনা ঘটাবেন! তাহলে কি এটাই ধরে নেব, তারা সরকারের করোনা তৎপরতাকে প্রশ্নবিদ্ধ কিংবা ক্ষতিগ্রস্ত করতেই এমনটাই করলেন!

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ওসি মো. শাহাদাৎ হোসেন টিটু বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে জানাজায় লোকজন আসে। কেউই লকডাউন কিংবা সামাজিক দূরত্ব মানার বিষয়টি আমলে নেননি। আমরা চিন্তাও করতে পারিনি যে, এত লোক হবে। লোকজন আসতে শুরু করার পর আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি তাদেরকে বোঝানোর এবং এভাবে সমাগম করে দেশের এই পরিস্থিতিতে জানাজা না করতে। কিন্তু কে শোনে কার কথা! পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। আমাদের আর কিছু করার ছিল না।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মানুষের জানাজায় লোকসমাগম হবে এটাই স্বাভাবিক। তবে দেশের এই দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে কেন? তবে কি তারা স্বপ্রণোদিতভাবেই চাইছেন করোনা সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ুক! এ কারণেই তারা এমন কাজটা করলেন! তারা কি একবারও ভেবেছেন, তাদের মধ্যে যদি ১ জন ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে থাকেন, তবে তার ফলটা কি হবে? একজন থেকে ভাইরাস পৌঁছে যাবে অন্যজনের শরীরে, এভাবে লাখো মানুষে। একটা সময় পুরো দেশে। তখন এর দায় কে নেবে!

ফেনীর হালচাল
ফেনীর হালচাল